Unlimited Plugins, WordPress themes, videos & courses! Unlimited asset downloads! From $16.50/m
Advertisement
  1. Code
  2. WordPress
Code

স্মার্ট ওয়ার্ডপ্রেস ডেভেলপারের টুলবক্সঃ থিম চেক

by
Difficulty:IntermediateLength:ShortLanguages:
This post is part of a series called Tools of the Smart WordPress Developer.
Toolbox of the Smart WordPress Developer: Kirki
Toolbox of the Smart WordPress Developer: GenerateWP

Bengali (বাংলা) translation by Kamal Ahmed (you can also view the original English article)

একটা থিম তৈরি করেছেন? খুব চমৎকার ! আপনি কি এটাকে চেক করেছেন?

আপনি যদি WordPress.org বা ThemeForest এ একটি থিম জমা দিতে চান তাহলে আপনার থিমকে চেক করার জন্য কিছু প্রদক্ষেপ নিতে হবে।  Theme Check প্লাগিন হল সেগুলোর মধ্যে একটি যা WordPress.org ও ThemeForest এর রিভিউ টিমরা ব্যবহার করে। এই টিউটোরিয়ালে আমরা আপনার প্লাগিনকে থিম রিভিউয়ের নির্দিষ্ট স্ট্যান্ডার্ড বা মানের সাতে যাচাইবাচাই করতে Theme Check এর মৌলিক ব্যবহার সম্পর্কে জানব।

চলুন শুরু করা যাক !

ওয়ার্ডপ্রসে কোডিং করার স্বাধীনতা এবং দায়িত্বশীলতার সাথে একে ব্যবহার

Code Responsibly sign

ওয়ার্ডপ্রেসে থিমে আপনি যেকোন কিছু করতে পারেন। যেকোন কিছু। আপনি লেটেস্ট পোস্টগুলোর তালিকা করতে পারেন, আপনি ভিডিও গ্যালারি প্রদর্শন করতে পারেন, আপনি আপনার সার্ভিসের জন্য পারিশ্রমিক নিতে পারেন, আপনি দিনের বেলা সিএসএস ফাইল পরিবর্তন করতে পারেন, আপনি আপনার ভিজিটরের ডিভাইস হ্যাক করতে পারেন খারপ JPEG  ফাইল ব্যবহার করে যা আসলে কোড রান করে।

কিন্তু উপরের সবগুলো জিনিসই কি "theme territory বা থিমের কাজের সীমার" মধ্যে নয়? না,সেটা আসল বিষয় না !  (আসলে, তাদের মধ্যে শুধু দুইটা ওয়ার্ডপ্রেস থিম দিয়ে করা উচিত। উপর্যুক্ত বিষয়গুলোর মধ্যে একটি হল বেআইনি-- আপনি অনুমান করুনতো কোনটি? আপনার থিম দিয়ে যেকোন কিছু করা আপনার উচিত না। থিমের কাজ হল ডিজাইন এলিমেন্ট প্রদান করা আর অন্য কিছুই না। কোন ফাংশনালিটি না। কোন ক্ষতিকারক কোড না।

এটাকে বলা হয় "প্লাগিনের কাজের ক্ষেত্র থেকে দূরে থাকা"। এই কথাটার মানে হল, সব ধরনের ফাংশনালিটি এক (বা একাধিক) প্লাগিনের মাধ্যমে প্রদান করা। ওয়ার্ডপ্রেস থিম তৈরির অনেকগুলো নিয়মের মধ্যে এটা হল একটা নিয়ম। এই হ্যন্ডবুকে আরো অনেক নিয়মাবলি রয়েছে এবং আপনাকে সবগুলো নিয়ম খুব ভালোভাবে মানতে হবে যদি আপনি থিমফরেস্টে বা ওয়ার্ডপ্রেসের ডিরেকটরিতে আপনার থিম জমা দিতে চান।

একটা ভালো থিম তৈরি করা মানে কিন্তু দেখতে সুন্দর এমন থিম তৈরি করাকে বুঝায় না--- আপনাকে এটা খুব ভালোভাবে কোডিং করতে হবে। আপনাকে অবশ্যই প্লাগিনের কাজকরা থেকে দূরে থাকতে হবে, নির্ভুল DOCTYPE  ব্যবহার করতে হবে, সব রকমের পিএইচপি ও জাভাস্ক্রিপের এরর বা ভুলগুলো ঠিক করতে হবে, কিছু কোর সিএসএস ক্লাসের সাপোর্ট যুক্ত করতে হবে আপনার থিমে, পর্যাপ্ত ডকুমেন্টেশন প্রদান করতে হবে, কোড গুলোকে সুন্দর করতে হবে অযথা কোড মুছে দিতে হবে, থিমকে অনুবাদযুগ্য করতে হবে, আর ওয়ার্ডপ্রেসকে(WordPress) সঠিকভাবে বানান করতে হবে।

এই কাজগুলোর মধ্যে কিছু কাজ আমাদের নিজ হাতে করতে হবে। এছাড়া বাকি সব কিছুর জন্য আপনি (Theme Check বা থিম চেক ) প্লাগিন ব্যবহার করতে পারেন। (তারপর আবার সবকিছু একবার ম্যানুয়াল্লি বা নিজ হাতে পরিক্ষা করা উচিত, কে জানে হয়তো কোন ভুল থেক যেতে পারে তাই!!!)

WordPress.org ও থিম ফরেস্টের থিম রিভিউ নিয়ে নয়টি বিষয়ের কথা উল্লেখ করতে হবে।

চলুন WordPress.org ও ThemeForest.এর থিম রিভিউয়ের প্রক্রিয়া নিয়ে আলোচনা করি। সর্ব প্রথম আমি আপনাকে মনে করিয়ে দিতে চাই যে থিম ফরেস্ট WordPress.org এর থিম রিভিউ প্রক্রিয়াকে সম্পূর্ণভাবে গ্রহন করে। তাই আমি প্রথমে WordPress.org এর থিম রিভিউ প্রক্রিয়া নিয়ে আলোচনা করব আর তারপর থিম ফরেস্টের থিম রিভিউ নিয়ে আলোচনা করব।

  1. The Handbookএই থিম রিভিউ হ্যান্ডবুকটা ওয়ার্ডপ্রেসের থিম রিভিউ করার খুব পবিত্র একটি বই। . তাই এটিকে আপনারও পবিত্র একটা বই হিসাবে গ্রহন করা উচিত।
  2. Required: WordPress.org এর থিম রিভিউ প্রক্রিয়ার শুরুতে সব "একান্ত প্রয়োজনীয় জিনিসগুলোকে" চেক করা হয়। আপনি যদি এই পর্বে পাস করতে করতে না পারেন, তাহলে আপনি ব্যর্থ হয়ে যাবেন আর আপনার থিম ওয়ার্ডপ্রেসের থিম রিপজিটরিতে দেখা যাবে না
  3. Recommended:  দ্বিতীয় পর্ব হলো "recommended বা সুপারিশকৃত" জিনিসগুলোর পরিক্ষা করা। ( সাব সেকশনগুলো / উপ অনুচ্ছেদগুলো দেখুন )  এই পর্বে আপনার থিমের জন্য একন্তভাবে জরুরি নয় এমন বিষয়গুলো (যেমন সিএসএস প্রিপ্রসেসর, কোর ফাংশনালিটি ও প্রাইভেসি বা গোপনীয়তা) পরিক্ষা করা হবে। আর পবিত্র হ্যান্ডবুকটা একটা কথা প্রতিজ্ঞাকরে বলে যে  "কোন থিমই অনুমোদন পাবেনা যদি তা রিকামেন্ডেড বা সুপারিশকৃত জিনিসগুলো থিমে যুক্ত না করে বা মেনে না চলে।" । আল্লাহ কবুল করুন এই বক্তবটিকে।
  4. Accessibility: এটা হল থিম রিভিউয়ের তৃতীয় পর্ব। এই পর্বে "accessibility (একসেসিবিলিটি)" চেক করা হয় শুধু ঐ থিমগুলোর যে থিমগুলোকে "accessibility-ready" হিসাবে ট্যাগ দেওয়া হয়েছে। অন্যান্য থিমের জন্য এই পরিক্ষা জরুরি না। একসেসিবিলিটির নিজস্ব কিছু  "জরুরী" ও "সুপারিশকৃত" উপ অনুচ্ছেদ আছে। তাই আপনি যদি কোন "accessibility-ready" থিমের কাজ করেন তাহলে অবশ্যই ঐ বিষয়গুলো ভালোভাবে দেখে নিতে ভুলবেন না।
  5. The Theme Check Plugin: আমরা যে প্লাগিনটি নিয়ে আলোচনা করব সেই প্লাগিনটা থিম রিভিউয়ারগণও ব্যবহার করবে। কিন্তু ওরা ব্যবহার করে বলে আপনাকে ব্যবহার করতে হবে না, সেটা কিন্তু নয়। বরং, এই প্লাগিনটা ব্যবহার করলে সেটা আপনার ও রিভিউয়ার দুজনেরই অনেক সময় বাঁচাবে । 
  6. Queues: রিভিউয়ারদের তাদের নিজস্ব কাজের ধরন আছে, তবুও তারা দুই ধরনের কাজের তালিকা নিয়ে কাজ করেন। একটা হল "নতুন" ( নতুন জমা দেওয়া হয়েছে এমন থিমগুলো) এবং "আপডেটস/হালনাগাদ" ( থিমের আপডেট বা হালনাগাদ)।
  7. Tickets: আপনার থিম রিভিউয়ার আপনাকে ঠিকিটের মাধ্যমে যোগাযোগ করবে। তিনি আপনাকে আপনার থিম সম্পর্কে জরুরী/প্রয়োজনীয় জিনিস, রিকামেন্ডেড/সুপারিশকৃত পরিক্ষা, এবং অন্যান্য মন্তব্য জানাবেন।
  8. Same Goes for ThemeForest...: WordPress.org এর থিম রিভিউ প্রক্রিয়া সম্পর্কে যা উল্লেখ করা হয়েছে তার সব কিছুই থিমফরেস্টের থিম রিভিউ প্রক্রিয়ার ক্ষেত্রেও প্রযোজ্য। আর হ্যা, আবশ্যই থিম রিভিউয়ারদের কাজের ধরন ভিন্ন হতে পারে।
  9. ... and even more, with ThemeForest-Check: Theme Check প্লাগিনটির একটি পুরাতন এডঅন আছে যার নাম হল হল ThemeForest-Check । এই প্লাগিনটা অতিরিক্ত কিছু পরিক্ষা নিরিক্ষা করে এবং কিছু ভিন্ন মেথডস/ফাংশন আছে। থিমফরেস্টে আপনার থিমের রিভিয়ের সময় বাচনোর জন্য এটা ব্যাবহার করতে পারেন।

আপনার থিমের অগ্রিম পরিক্ষা করার জন্য থিম চেক প্লাগিনের ব্যবহার

থিম চেক প্লাগিনের ব্যবহার খুবই সহজ সরল।

  • "Theme Check" শব্দটি লিখে সার্চ করুন Plugins > Add New -এইখানে। ( এমনও হতে পারে আপনি এই প্লাগিনের নাম লিখে সার্চ দেওয়ার আগেই সেটা কে পেয়ে যেতে পারেন যেহেতু এটা বেশিরভাগ সময়েই "Featured Plugins" সেকশনে থাকে। )
  •  Install Now - বাটনে ক্লিক করুন।
  • ইন্সটল করার পর প্লাগিনটাকে একটিভেট বা চালু করুন।
  • Appearance > Theme Check  এই সেটিং এ যান।

এই সহজ ধাপ গুলো পার হওয়ার পর আপনি নিচের মত একটা স্ক্রিন দেখতে পারবেন।

Theme Check screenshot

আপনার থিম চেক বা পরিক্ষা করার আগে আপনার উচিত হল wp-config.php-এ গিয়ে WP_DEBUG এর মান true করে দেওয়া যা ডিফল্টভাবে false থাকে। এখানে দেখানো হলো কিভাবে এটা করতে হয়।

থিম চেক প্লাগিনটা যা যা পরিক্ষা করে

আল্লাহ, সামান্য শব্দ পরিবর্তন করে লেখা অসংখ্য শিরোনামগুলোকে আমি সত্যি অনেক ভালোবাসি।

আমি যখন এই টিউটোরিয়াল লিখছি তখন হ্যান্ডবুকটির "Theme Check Plugin" পৃষ্টার চেকলিস্টে ৯৫ টা আইটেম/বিষয় আছে। অনেক অস্পষ্ট আইটেম আছে, কিন্তু সেকশনের শিরোনাম গুলো কিছুটা পরিষ্কার।

  • এডমিন মেনুর পরিক্ষা বা যাচাই করা
  • eval() ফাংশন এবং আরো অনেক কিছুর সাহায্যে ক্ষতিকর কোড যেমন base64 ডিকোডিং/এনকোডিং ইত্যাদির পরিক্ষা করা যা পিএইচপির সেটীং এর সাথে কাজ করে।
  • এটা যেকোনো লেখাকে পরিক্ষা করে যেমন DOCTYPE wp_footer() ও comment_form() । (Personal rant: Why does every single theme support WordPress comments? (ব্যক্তিগত ভাড়াঃ কেন প্রতিটা থিম ওয়ার্ডপ্রেসের কমেন্ট সাপোর্ট/সমর্থন করে?   I think I haven't used comments at all for any of my clients' corporate websites.) আমার মনে হয় আমি আমার ক্লাইয়েন্টের কোন কর্পোরেট ওয়েবসাইটে কোন কমেন্ট একেবারেই ব্যবহার করিনি।)  
  • CDN / সিডিএন পরিক্ষা করে।
  • TEMPLATEPATH  ও  PLUGINDIR  এর মত পিএইচপির কন্সটান্টগুলোকে পরিক্ষা করে।
  • সাধারণ সব পরিক্ষা করে।
  • কাস্টোমাইজার যেভাবে কাজ করে সেভাবে কাস্টোমাইজেশনকে পরিক্ষা করে।
  • ডেপ্রিকেশন বা ভবিষ্যতে বাদ যাবে এমন কোড আপনার থিমে আছে কি না তা পরিক্ষা করে।
  • লাইন সঠিকভাবে শেষ হয়েছে কিনা তা পরিক্ষা করে।
  • অতিরিক্ত পরিক্ষা নিরিক্ষা করে যেমন প্রয়োজনাতিরিক্ত ফাইল (যেমন .git ও .svn ) , প্রয়োজনীয় ফাইল, পিএইচপির শর্ট ট্যাগস এবং পেজিনেশন কোড এর পরিক্ষা করে।
  • টেক্সট ডোমেইন এর চেক করে।
  • স্টাইলশিটের বিভিন্ন পরিক্ষা করে, যেমন থিমের নাম, ভারশন, ওয়ার্ডপ্রেসের ডিফল্ট সিএসএস এর জন্য সাপোর্ট ইত্যাদি।
  • স্ক্রিনশটের পরিক্ষা ( স্ক্রিনশট আছে কি না ও এর সাইজ সঠিক কি না)  করে।
  • প্লাগিনের টেরিটোরি বা কাজের পরিসীমা পরিক্ষা করে। (আমি এটাকে সবথেকে গুরুত্বপূর্ণ পরিক্ষা মনে করি।)
  • উইডজেট এর সাপোর্ট কেমন তা পরিক্ষা করে।
  • রিকামেন্ডেড বা সুপারিশকৃত বিষয়গুলোর পরিক্ষা করে যেমন ফিচারড ইমেজের জন্য সাপোর্ট, এডিটর স্টাইলশিটের জন্য সাপোর্ট এবং নতুন add_theme_support( 'title-tag' ) এর সাপোর্ট।
  • ক্ষতিকর কোড আছে কিনা তার পরিক্ষা করে।
  • এবং তথ্য সম্পর্কীয় ( যা গুরুত্বপূর্ণ নয় আবার সুপারিশকৃতও নয়) পরিক্ষা নিরিক্ষা করে। যেমন iframe এর ব্যবহার, সম্ভাব্য এমন লিঙ্ক যা ডাইনামিক না, এবং প্রিন্ট করার অযোগ্য অক্ষর( যেমন তুর্কির বিশেষ অক্ষর সমুহ যা আসলেই অদ্ভুত বলে আমি মনে করি। )

সাইড/পার্শ্ব-নোটঃ থিম রিভিউএর পবিত্র বইটিতে অনেক খালি বা অপরিপূর্ণ পৃষ্টা রয়েছে যার মানে সেটাকে আরো উন্নত করার সুযোগ এখনো খোলা আছে। আপনি যদি এই টিউটোরিয়াল ভবিষ্যতে পরে থাকেন তাহলে, তাহলে অনেক বড় বড় কথা বলার জন্য আমি দুঃখিত।

আজকের জন্য সমাপ্তি ঠানছি।

আমি আগেই যেভাবে বলেছি, আপনাকে ওয়ার্ডপ্রসের দেওয়া স্বাধীনতাকে দায়িত্বশীলতার সাথে ব্যবহার করতে হবে। আপনি যদি এই মুহূর্তে একটা থিম তৈরি করেন, তাহলে আপনার থিমের সম্ভাব্য ব্যবহারকারিদের ব্যপারে আপনাকে অবশ্যই চিন্তাশীল হতে হবে। থিমচেক প্লাগিনটি আপনার ওয়ার্ডপ্রেস থিমের কোডকে চেক করে পরিপূর্ণ বানানোর একটা অসাধারন হাতিয়ার।

আপনি থিম তৈরি ও এই টুল সম্পর্কে কি মনে করেন? নিচে মন্তব্য করে আমাদের সাথে আপনার মতামত জানান। আর আপনি যদি এই লেখাটি পছন্দ করেন, তাহলে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করতে ভুলবেন না।

দেখা হবে আবার আগামী পর্বে যেখানে আমরা আলোচনা করব একটা ওয়েবসাইট নিয়ে যার নাম হলো GenerateWP ।

Advertisement
Advertisement
Looking for something to help kick start your next project?
Envato Market has a range of items for sale to help get you started.